আপনি যদি অফিস শিফট করার পরিকল্পনা করে থাকেন, অবশ্যই আপনার লক্ষ্য থাকবে যত কম ঝামেলায় শিফট করা যায়। যদিও অফিস শিফট করা অনেক ঝক্কির কাজ, কিছু ধাপ অনুসরণ করলে ব্যাপারটা অনেক সহজ ও সাবলীল হয়ে যায়। 

এখানে আপনার দুশ্চিন্তা কমানোর জন্য ৫ টি ধাপ দেয়া হলো যেগুলো অনুসরণ করলে নিমিশেই অযাচিত ঝামেলা থেকে রেহাই পাবেন। 

প্রথম ধাপঃ প্রথমের কাজ প্রথমে

অফিস শিফট করার সিদ্ধান্ত নেয়ার সময়ই আপনার প্রথম ধাপটি অনুসরণ করতে হবে। সাধারনত অফিস শিফট করার ৩ থেকে ৬ মাস আগেই নিম্নোক্ত ধাপগুলো শুরু করা উচিত হবে

 

  • বাণিজ্যিক সম্পত্তি লিজের বিষয়টি পর্যালোচনা করুন। আপনি নির্ধারিত সময়ের আগে চলে যেতে চাইলে ডিপোজিটের টাকা বা সেফটি মানি দিয়ে যেতে হতে পারে। খেয়াল রাখবেন অফিস স্পেসের কোনো ক্ষয়-ক্ষতি হলে তার দায়ভার আপনাকে নিতে হবে।
  • প্ল্যানিং এর জন্য একটা টিম রেডি রাখুন যারা আপনার অফিস শিফট করার কাজগুলো ঠিকঠাক গুছিয়ে রাখবে
  • অফিস শিফট করে এমন বিভিন্ন কোম্পানি রিসার্চ করুন এবং আপনার বাজেট এর সাথে মিলে যায় এমন কোম্পানি বাছাই করুন। sBusiness বর্তমানে সুদক্ষ কর্মী দ্বারা নিশ্চয়তার সাথে শিফটিং কাজ সম্পন্ন করে থাকে
  • আপনার গুরুত্বপূর্ণ ইকুইপমেন্টস এবং মেশিনারিজ  শিফট করার জন্য ইন্সুরেন্স লাগবে কিনা নিশ্চিত করুন
  • শিফটিং এর জন্য বাজেট ঠিক করুন যাতে বেশি খরচ না হয়

 

দ্বিতীয় ধাপঃ যোগাযোগ

শিফটিং এর তারিখ নিশ্চিত করার সময়ই ইন্টারনাল এবং এক্সটারনাল টিমকে জানিয়ে দিন।

  • আপনার বাড়িওয়ালা বা প্রোপার্টি ম্যানেজারকে শিফটিং এর ব্যাপারটি আনুষ্ঠানিক ভাবে জানিয়ে দিন
  • সকল টিম মেম্বারদের শিফটিং-এর তারিখ এবং নতুন ঠিকানা জানিয়ে দিন
  • আপনার ক্লায়েন্ট এবং সার্ভিস প্রোভাইডারের লিস্ট ঠিকঠাক আছে কিনা নিশ্চিত করুন
  • আপনার সহকর্মীদের লিস্ট ঠিক আছে কিনা নিশ্চিত করুন
  • লোকাল পার্টনার এবং সাপ্লাইয়ার দের জানিয়ে রাখুন যে আপনি শিফটিং করছেন
  • শিফটিং কোম্পানির সাথে ফাইনাল রিজার্ভেশন নিশ্চিত করুন

যাদেরকে নতুন ঠিকানার নোটিশ দিতে হবে

  • ক্লায়েন্ট এবং পার্টনার
  • ব্যাংক
  • টেলিফোন কোম্পানি
  • ইন্সুরেন্স কোম্পানি
  • ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার
  • খাবার সরবরাহকারি কোম্পানি
  • ফটোকপি এবং প্রিন্টার সম্পর্কিত সার্ভিস কোম্পানি
তৃতীয় ধাপঃ প্রস্তুতি
  • নতুন অফিসের বিস্তারিত ফ্লোর প্ল্যান প্রস্তুত করুন
  • নতুন ফার্নিচার প্রয়োজন হলে ফার্নিচার কোম্পানির সাথে যোগাযোগ করুন 
  • প্রত্যেক সহকর্মীর জন্য আলাদা নাম্বার প্রস্তুত করুন এবং তাদের ডেস্ক এবং ইকুইপমেন্টস-এ নাম্বারটি লিখে রাখুন
  • অফিসিয়াল পেপারওয়ার্ক এবং লাইসেন্স এ সাইন করে রাখুন
  • নতুন অফিসের জন্য ক্লিনিং সার্ভিস প্রস্তুত রাখুন। sBusiness-এর মাধ্যমে নিমিশেই অফিস শিফটিং-এর সাথে প্রফেশনাল ক্লিনিং সার্ভিসও অর্ডার করতে পারেন
  •  সব কম্পিউটার এক্সেসরিজ এ লেবেল এটে দিন
  • সকলে তাদের ব্যাক্তিগত জিনিসপত্র নিজেদের সংগ্রহে রেখেছে কিনা নিশ্চিত করুন।

 

চতুর্থ ধাপঃ শিফটিং শুরু করা
  • গুরুত্বপূর্ণ ফোন নাম্বারগুলো প্রিন্ট করে হাতে রাখুন
  • সকল টেক ইকুইপমেন্টস সবার আগে শিফট করুন
  • সহকর্মীদের নাম্বার অনুযায়ী ডেস্ক এবং অন্যান্য ইকুইপমেন্টস ঠিকঠাক আছে কিনা নিশ্চিত করুন

 

পঞ্চম ধাপঃ নতুন অফিস সেট আপ করা 
  • সব স্পেস স্পষ্টভাবে কর্মীদের মাঝে বুঝিয়ে দেয়া
  • সকল কম্পিউটার এবং টেক ইকুইপমেন্টস সেট আপ করা
  • টেলিফোন লাইন সেট আপ করা
  • কোম্পানি ওয়েবসাইট নতুন ঠিকানা এবং ফোন নাম্বার আপডেট করুন
  • ইন্সুরেন্স সফল ভাবে ট্রান্সফার হয়েছে কিনা নিশ্চিত করুন
  • সকল ইনভয়েস এবং পেমেন্ট পুনরায় চেক করুন
  • নতুন আইটি সিস্টেম স্থাপন করুন
  • সব আসবাবপত্র ঠিকঠাক এসেছে কিনা নিশ্চিত করুন

 

উপরোক্ত ধাপগুলো ঠিকঠাক অনুসরন করলে অফিস শিফট করার ঝামেলা ৭০% কমে যাবে। 

তাই অফিস শিফটিং হবে এখন কোন ধরণের ঝামেলা ছাড়াই! কারন sBusiness প্ল্যাটফর্মের শিফটিং সার্ভিসে আপনি পাচ্ছেন দক্ষ কর্মীদের দ্বারা নিশ্চিন্তে অফিস শিফটিং- এর নিশ্চয়তা।

বিস্তারিত জানতে ভিজিট করুন sBusiness.xyz অথবা ডায়াল করুন +8801833309555 নাম্বারে।

Leave a comment